বন্যা দুর্গতদের পাশে কুষ্টিয়ার খোকসা থানার তরুণেরা

মানবতার বিপর্যয়ের পাশে ওরা ৩০ জন

সারাদেশ বন্যায় ভাসছে। বানভাসি মানুষের পাশে দাড়াতে নিজেদের সমর্থন কে পুজি করে ওরা ৩০ জন মানবতার বিপর্যয়ের পাশে দাঁড়িয়েছে।

কু্ষ্টিয়া খোকসা উপজেলার খোকসা কলেজের অর্থনীতির প্রভাষক মোঃ জাহিদ হাসান রাহাতের ডাকে সাড়া দিয়ে বানভাসি মানুষের পাশে দাঁড়াতে গত ( মঙ্গলবার) ৪ দিন আগে থেকে সাহায্য সহযোগীতা অনুদান সংগ্রহ করছে।

লাল এবং নীল রং এর গেঞ্জি পরিহিত ৩০ জন মেধাবী ছাত্র এই কাজটি হাতে নিয়েছে।

খোকসা থানার ওসি জনাব মোঃ নাজমুল হূদার অনুমতিতে এলাকার সকল স্তরের জনসাধারনের স্ব-ইচ্ছায় যে যা দিচ্ছে তা নিয়ে বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়িয়েছে।

ইতিমধ্যে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের এবং খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ কামরুজ্জামান সোহেল এর সার্বিক সহযোগিতা এছাড়াও  সাধারণ মানুষের অনুদানে  অত্র উপজেলার আমবাড়িয়া ইউনিয়নের মখলুর চরের প্রায় ৫০ পরিবারকে শুকনা খাবার, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট, খাবার স্যালাইন, টেট্রোসাইক্লিন, প্যারাসিটাম্যাল, মোমবাতি, লাইটার ও বিভিন্ন উপকরণ বিতরণ করে।

গত ৪ দিনে প্রায় ৩৫ হাজার টাকা ফান্ডে জমা হয়েছে। বানভাসি মানুষের পাশে দাঁড়াতে আজ বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় বাজার থেকে  খোকসা বাস স্ট্যান্ডসহ খোকসা থানার পার্শ্ব রাস্তা দিয়ে এক র‍্যালি বের করে। র‍্যালিতে স্থানীয় বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীগণ ও সাধারন জনগন অংশ গ্রহন করে।

কার্য-সংশ্লিষ্ট তানিম জানান, দু’একদিনের মধ্যে আমরা কুড়িগ্রাম বা গাঁইবান্ধার বানভাসিদের জন্য সাহায্য সহযোগিতা নিয়ে  যাব।

আমাদের সাথে আরো রয়েছে বিভিন্ন কলেজে অধ্যয়ণরত রনি, জাহিদ, রানা নায়েক সহ ৩০ জন শিক্ষার্থী। আমরা দু ‘দলে ভাগ হয়ে লাল ও নীল রঙ্গে গেঞ্জি পরে মানুষের দাঁড়ে দাঁড়ে ঘুরে ত্রানের অর্থ সংগ্রহ করছি।

তানিম, রানা, রনি,  রিমন প্রত্যক্ষভাবে বলেন, এ কাজে নিজেকে জড়াতে পেরে ধন্য হয়েছি। মানবতা বিপর্যয়ে বানভাসি মানুষের ক্ষুধার্থের জন্য এক মুঠো অন্ন জোগাতে পেরে আনন্দিত আমরা ৩০ জন।

কৃতজ্ঞতা জানায় খোকসাবাসীর প্রতি, যারা আমাদের ডাকে সাড়া দিয়ে এ সকল বানভাসিদের পাশে দাঁড়াতে অর্থ দিয়েছেন।

আসুন উত্তরাঞ্চলের বানভাসিদের সাহায্যে যার যতটুকু সামর্থ আছে তা দিয়ে ওদের পাশে দাঁড়ায়।

Comments

comments