রিফাত

দাফনের আগে ছাত্রলীগের সভাপতি হলেন রিফাত

মোঃ জাফর আলম,কক্সবাজার।

কক্সবাজারের রামু উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী হোসেন মাহমুদ রিফাতকে মৃত্যুর পর উপজেলা সভাপতি ঘোষনা করা হয়েছে। কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের ( ভারপ্রাপ্ত) সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ হোসেন তানিম শনিবার রামুতে রিফাতের জানাজায় তাকে রামু উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ঘোষণা করেন।

তিনি আরো বলেন, যতদিন রামু উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি হবেনা, ততদিন রিফাত উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হিসাবে থাকবেন। এ ঘোষণার পরপর জানাজায় উপস্থিত ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। প্রসঙ্গত,গত তিন বছর ধরে কক্সবাজারের রামু উপজেলার সভাপতি হওয়ার চেষ্টা চালিয়ে আসছিলেন রিফাত। স্থানীয় আ’লীগ ও দলীয় সাংসদের কোন্দলের কারণে রামু উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষনা করতে পারছিল না জেলা ছাত্রলীগ।

জীবদ্দশায় না হলেও মৃত্যুর পর রিফাতকে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ঘোষনা করা হয়। আর এ জন্য জেলা ছাত্রলীগের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন রামুবাসি।রিফাত কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সদস্য ছিলেন। তিনি রামু উপজেলা ছাত্রলীগের বিগত আহবায়ক কমিটির যুগ্ন আহবায়ক ছিলেন।তিন বছর আগে সেই আহবায়ক কমিটি ভেঙ্গে দিলেও রামু আওয়ামী লীগ ও স্থানীয় সাংসদের কোন্দলের কারনে নতুন কমিটি ঘোষনা করতে পারেনি জেলা ছাত্রলীগ।

গত ১৬ আগষ্ট হঠাৎ নিজ বাড়ীতে ব্রেইন স্ট্রোক করে মারা যান রিফাত। তার মা শনিবার সকালে যুক্তরাষ্ট্র থেকে আসার পর বিকালে রামু স্টেডিয়ামে জানাজা শেষে রিফাতকে পারিপারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়। রিফাতের জানাজায় কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল, রামু উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সোহেল সরওয়ার কাজল, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইশতিয়াক আহমদ জয়, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের,সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইমরুল হাসান রাশেদ বক্তব্য রাখেন।

Comments

comments