ইশতিয়াক আহমেদ। অনন্ত জলিল

“তিনি রাজনীতিবীদদের মতো লোক দেখানো ৯ জন মিলে ১ জনে ত্রাণ দেয়ার ফটোশেসনে যাননি। ইশতিয়াক আহমেদ

অনন্ত জলিলের ত্রাণ দেওয়া নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন লেখক, গীতিকার এবং সাংবাদিক ইশাতিয়াক আহমেদ। তার স্ট্যাটাস মানেই অন্য রকম কিছু। তার লেখা ছুঁয়ে যায় হৃদয়ে। তার মায়াবী স্ট্যাটাসটি হুবাহু দেওয়া হল

কাজি মারুফ আমার পছন্দের নায়ক না।
অনন্ত জলিলও না।
আমি কাজি মারুফেও হাসি, অনন্ত জলিলেও হাসি।
কাজি মারুফ ‘কুত্তারবাচ্চা’ বলে সবাইকে বিনোদিত করেন, অনন্ত জলিলও ‘অসম্ভবকে সম্ভব’ বলে করেন।
নায়ক অনন্ত জলিলকে আমি দর্শক হিসেবে যেমন ফুঁ নিয়ে উড়িয়ে দিতে পারি আমার রুচি বা পছন্দের জায়গা থেকে, আবার উড়ে চলা ব্যাক্তি জলিলকে স্পর্শ করতে আমার অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়।ইশতিয়াক আহমেদ
আমার একবার সাক্ষাতের অভিজ্ঞতা তাই বলে।
বড়ভাই তানভীর Tareq’র বিশেষ সহযোগিতায় তা সম্ভব হয়েছিলো।
অনন্ত জলিলের শেষ ধর্মপ্রচারের নমুনাও আমার ভালো লাগেনি।
আমি নারায়ণগঞ্জে ওমুক মসজিদে আসছি, এটা ভিডিও করে বলার কিছু না। ফেসবুকে ধর্ম প্রচার আর আমীন লিখে যাবেননাকে আমি এক পাল্লাতেই মাপি।
আর প্রেম আর ইবাদতকে আমি গোপন বিষয় হিসেবেই জানি। মানি।
তবে, অনন্ত জলিল ত্রাণ নিয়ে যাচ্ছেন এটা আমার কাছে অনেক বড় বিষয়। আমি এটাকে আমি শ্রদ্ধা করি।
সেটা হেলিকপ্টারে হোক অথবা পায়ে হেঁটে। সেটা তার নতুন ধরনের পোশাকেই হোক বা খালি গায়ে।
তখনই আমি ট্রল করবো, যখন এতো আয়োজন করে গিয়ে ত্রাণের নামে প্রহসন থাকবে।
জলিল সাহেবের সেটা নেই। ছিলো না।
তিনি রাজনীতিবীদদের মতো লোক দেখানো ৯ জন মিলে ১ জনে ত্রাণ দেয়ার ফটোশেসনে যাননি।
দূর্গত মানুষের কোনও অসুবিধা নেই আপনি হেলিকপ্টারে চড়ে গেলে।
দূর্গত মানুষের অসুবিধা, আপনি এই দুঃসময়ে সহযোগিতা না করে, সহযোগিতা করা কোনও লোককে নিরুৎসাহিত করলে

Comments

comments