জুড়ী’তে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ক্লাব এর প্রচেষ্টায় স্কুল ছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ

জুড়ী (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি || মৌলভীবাজার জেলা’র জুড়ী উপজেলা’র ৬-নং সাগরনাল ইউ,পি’র ৩-নং ওয়ার্ডের উওর বড়ডহর গ্রামের আব্দুল আহাদ এর মেয়ে স্থানীয় সাগরনাল উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্রীর সাথে উপজেলার ৩-নং পশ্চিম জুড়ী ইউ,পি’র বাছিপুর গ্রামের ডুবাই প্রবাসী ছাদ মিয়ার আজ বৃহস্পতিবার (২৪-০৮-১৭ই) তারিখে ব্যাপক আয়োজনের মধ্য দিয়ে বিয়ের আয়োজন চলছিলো। বরের আগমনের অপেক্ষা’য় কনে পক্ষের। দাওয়াতি মেহমানও যথারিতি অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত হয়েছেন।

বাল্য-বিয়ের সংবাদ পেয়ে “বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ক্লাব” মৌলভীবাজার এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সাংবাদিক জাকির হোসেন মনির ও ক্লাবের সদস্য ফ্রিল্যান্স ক্রাইম সাংবাদিক এস,এম জালাল উদ্দীন, হাবিবুর রহমান খান যোগাযোগ করেন সাগরনাল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকার সাথে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ও কয়েকজন শিক্ষক-কে সাথে নিয়ে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ক্লাবের প্রতিনিধিরা কনের পিত্রালয়ে উপস্থিত হয়ে বাল্যবিয়ের বিষয়’টি নিশ্চিত হওয়ায় বিয়ে বন্ধ করার জন্য কনের পিতা-মাতা-কে অনুরোধ করার পর বিয়ে’র সকল আয়োজন ভেঙ্গে যায়।

এ-বিষয়ে সাগরনাল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা রাশেদা বেগম জানান, সকাল ১০-টায় বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ক্লাব এর প্রতিষ্ঠান চেয়ারম্যান আমাকে ফোন আলাপে বাল্যবিয়ের বিষয়’টি জানালে আমি খোঁজ নিয়ে তার সত্যতা নিশ্চিত হয়ে তাদের সাথে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিয়ে বন্ধ করার জন্য অভিবাব’কে বলার পর তারা বিয়ে বন্ধ করেন। তিনি আরোও জানান, বিদ্যালয়ের ভর্তি রেজিস্টার অনুযায়ী ছাত্রীর(কনের) জন্ম-তারিখ ০৫-০৬-২০০২ইং।

এ-বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ক্লাব এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সাংবাদিক জাকির হোসেন মনির জানান, আমরা বাল্যবিয়ের সংবাদ পেয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এর সাথে যোগাযোগ করে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিয়ের আয়োজন দেখি। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা সহ অন্যান্য শিক্ষকদের উপস্থিতিতে বাল্য বিয়ে বন্ধ করার জন্য কনের পিতা-মাতা কে অনুরোধ করি। আমাদের উপস্থিতিতে বিয়ে বন্ধ হয় এবং বিয়ের গেইট সঙ্গে সঙ্গে ভেঙ্গে ফেলেন আয়োজক পরিবার। আমি বিষয়টি জুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিন্টু চৌধুরী ও জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জালাল উদ্দিন এবং মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কে অবগত করি। স্থানীয় জুড়ী’র একজন প্রভাবশালী নেতা আমাকে ফোন দিয়ে জানতে চান কেনো বিয়ে বন্ধ করলাম? আমি বিস্তারিত বলার পরও তিনি আমাকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। যা রেকডিং করে আমি স্থানীয় প্রশাসন কে অবগত করি।

Comments

comments